বুধবার, সেপ্টেম্বর 23, 2020
Home ফুটবল বায়ার্ন মিউনিখের জার্সিতে অভিষেক প্রথম ভারতীয় বংশোদ্ভূত ফুটবলার সরপ্রীত সিংহের

বায়ার্ন মিউনিখের জার্সিতে অভিষেক প্রথম ভারতীয় বংশোদ্ভূত ফুটবলার সরপ্রীত সিংহের

পঞ্জাব থেকে নিউজ়িল্যান্ড: পঞ্জাবের মাহিলপুরের কাছে একটি ছোট গ্রামে সরপ্রীতের পূর্বপুরুষেরা থাকতেন। তার জন্ম অবশ্য নিউজ়িল্যান্ডের অকল্যান্ডে। তবে ভারতীয় সংস্কৃতির আবহেই তার বড় হওয়া।

প্রথম ভারতীয় বংশোদ্ভূত ফুটবলার হিসেবে বায়ার্ন মিউনিখের জার্সিতে অভিষেক হয়েছে তাঁর। রবার্ট লেয়নডস্কি, ফিলিপে কুতিনহো, থোমাস মুলারদের সতীর্থ সরপ্রীত সিংহের জন্ম নিউজ়িল্যান্ডে হলেও মনেপ্রাণে তিনি ভারতীয়।

পঞ্জাব থেকে নিউজ়িল্যান্ড: পঞ্জাবের মাহিলপুরের কাছে একটি ছোট গ্রামে সরপ্রীতের পূর্বপুরুষেরা থাকতেন। তার জন্ম অবশ্য নিউজ়িল্যান্ডের অকল্যান্ডে। তবে ভারতীয় সংস্কৃতির আবহেই তার বড় হওয়া। পঞ্জাবি বলতে পারেন। প্রিয় গায়কের নাম জ়্যাজ়ি বি। এখনও পর্যন্ত তিন বার তিনি পূর্বপুরুষের ভিটেতে এসেছেন। জানালেন, প্রত্যেক বারই অসাধারণ অভিজ্ঞতা হয়েছে।

ফুটবলার হওয়ার জন্যই তার গৃহত্যাগ করা। নিউজ়িল্যান্ডে ফুটবলের চেয়ে ক্রিকেট বেশি জনপ্রিয়। সরপ্রীতের কাকা ও দাদা ক্রিকেটের পাশাপাশি ফুটবলও খেলতেন। সরপ্রীতও ছোটবেলায় সব ধরনের খেলাধুলো করেছেন। কিন্তু বেশি আকর্ষণ ছিল ফুটবলে। তাই ক্রিকেট খেললেও শেষপর্যন্ত ফুটবলারই হওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। ফুটবলের প্রথম পাঠ অকল্যান্ডের একটি অ্যাকাডেমিতে। কিন্তু পেশাদার ফুটবলার হওয়ার জন্য ১৫ বছর বয়সে বাড়ি ছেড়ে চলে গিয়েছিলেন ওয়েলিংটনে  

বায়ার্ন মিউনিখে সুযোগ পাওয়া? পেশাদার ফুটবলার হিসেবে সরপ্রীতের প্রথম ক্লাব ছিল ওয়েলিংটন ফিনিক্স। ওখানে খেলার সময় নিউজ়িল্যান্ডের অনূর্ধ্ব-২০ জাতীয় দলে নির্বাচিত হয়েছিলেন। অনূর্ধ্ব-২০ বিশ্বকাপে তার খেলা দেখে পছন্দ হয়েছিল বায়ার্ন মিউনিখের কর্তাদের। তারপরই স্বপ্নপূরণ! সরপ্রীতের কাছে বায়ার্নের জার্সিতে অভিষেক জীবনের অন্যতম স্মরণীয় মুহূর্ত। তবে প্রথম ম্যাচের আগে সরপ্রীতের বিশেষ টেনশন হয়নি। লক্ষ্য ছিল, ধারাবাহিকতা বজায় রাখা। বালা দেবীর মতো সরপ্রীতেরও অন্যতম লক্ষ্য, সব সময় যেন পরের প্রজন্মের ফুটবলারদের কাছে প্রেরণা হয়ে উঠতে পারেন। ওরা যেন তাকে দেখে উদ্বুদ্ধ হন। সরপ্রীতের বিশ্বাস, ভারতীয় এবং ভারতীয় বংশোদ্ভূত অনেক ফুটবলার আছে, যারা ইউরোপে খেলার যোগ্য।