মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর 22, 2020
Home ফুটবল ইস্টবেঙ্গলের হাতে পরের মরশুমের আইএসএল খেলার ছাড়পত্র পাওয়ার সময় আছে মাত্র দেড়...

ইস্টবেঙ্গলের হাতে পরের মরশুমের আইএসএল খেলার ছাড়পত্র পাওয়ার সময় আছে মাত্র দেড় মাস!

ইস্টবেঙ্গলের হাতে আইএসএলে খেলার যোগ্যতা অর্জনের জন্য সময় রয়েছে মাত্র দেড় মাস! বরং দুই প্রধান মোহনবাগান এবং ইস্টবেঙ্গলের একসঙ্গে আইএসএলে খেলার সম্ভাবনা ক্রমশ কমছে। মোহনবাগা ইতিমধ্যে এটিকে-র সঙ্গে গাঁটছড়া বেঁধে আইএসএলে পরের মরশুমে খেলা প্রায় পাকা করে ফেলেছে। কিন্তু লাল-হলুদের হাতে এখনও পর্যন্ত কোনও স্পনসর নেই। আগে শোনা গিয়েছিল আইএসএল আয়োজক সংস্থা এফএসডিএল ইস্টবেঙ্গলকে আইএসএলে খেলার যোগ্যতা অর্জনের জন্য জুন মাস পর্যন্ত সময় দেবেন। কিন্তু শুক্রবার এফএসডিএলের এক কর্তা জানিয়ে দিয়েছেন যোগদানের আবেদন করার জন্য ইস্টবেঙ্গলকে সময় দেওয়া হবে ৩১ মার্চ পর্যন্ত।

কারণ লিগের মরসুম এপ্রিল থেকে পরের বছর মার্চ পর্যন্ত। গত ছ’বছর ধরে প্রত্যেকটা ফ্র্যাঞ্চাইজি এই নিয়ম মেনে আসছে। ইস্টবেঙ্গলের এক শীর্ষ কর্তা অবশ্য নিশ্চিত যে লাল-হলদ ছাড়া আইএসএল হওয়া শেষপর্যন্ত অসম্ভব। কিন্তু ৩১ মার্চের মধ্যে ইস্টবেঙ্গলকে স্পনসরের নাম জানিয়ে দিতে হবে। যাতে এফএসডিএল এপ্রিলে ওদের অন্তর্ভূক্তিকরণ নিয়ে সিদ্ধান্ত নিতে পারে।

কোয়েস ইতিমধ্যে ইস্টবেঙ্গলকে ছেড়ে দেওয়ার ইঙ্গিত দিয়েছে। কিন্তু তাদের সঙ্গে কাগদে কলমে চুক্তি ৩১ মে পর্যন্ত। সেক্ষেত্রে ৩১ মার্চের মধ্যে কীভাবে আইএসএল খেলার জন্য ইস্টবেঙ্গল নতুন স্পনসর পায় সেটা দেখার। আর একটা পথ খোলা আছে ইস্টবেঙ্গলের সামনে। ব্তমানে আইএসএলে খেলা কোনও ফ্র্যাঞ্চাইজির সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধা এবং লিগে খেলা। শোনা গিয়েছিল ওড়িশা এফসি-র সঙ্গে সেই গাঁটছড়া নাকি বাঁধতে চলেছে ইস্টবেঙ্গল। কিন্তু সম্প্রতি ওড়িশা এফসি-র মালিক রোহন শর্মা জানিয়ে দিয়েছেন সেরকম কোনও আলোচনা এখনও পর্যন্ত হয়নি এবং এর সম্ভাবনাও না থাকার মতো। তাই অসংখ্য লাল হলুদ সমর্থক এখন তাকিয়ে সময়ের দিকে জানার জন্য যে পরের মরশুমেও আইএসএলে খেলতে ইস্টবেঙ্গল পারবে কি না।