রবিবার, নভেম্বর 29, 2020
Home ফুটবল আজ ডার্বি: মহাযুদ্ধের আগে অদ্ভূতভাবে শান্ত দুই কোচ!

আজ ডার্বি: মহাযুদ্ধের আগে অদ্ভূতভাবে শান্ত দুই কোচ!

দুই ক্লাবের পরিস্থিতি এবং পরিবেশ এখন এমন যে, দুই স্পেনীয় কোচই এই ধুন্ধুমার ম্যাচের আগে প্রচণ্ড চাপে।

আলেসান্দ্রো মেনেন্দেস গার্সিয়া গম্ভীর মুখে চেয়ার ছেড়ে উঠতেই মিডিয়া রুমের দরজা খুলে ঢুকে পড়লেন কিবু ভিকুনা। স্বদেশীয় সতীর্থকে দেখে যেন স্বস্তি ফিরল লাল-হলুদ কোচের মুখে। নিয়ম মেনে হাত মেলানো পর্ব শেষ হতেই জোসেবা বেইতিয়াদের কোচের কানের কাছে মুখ এনে, পিঠে হাত রেখে এমনভাবে মিনিট তিনেক কথা বললেন তিনি, যা দেখে ভিক্টোরিয়া চত্বর বা কোনও পার্কে দেখা দৃশ্যের কথা মনে হতেই পারে।

বাঙালির দু’ভাগ হয়ে যাওয়ার চিরকালীন ম্যাচ আজ, রবিবার। হোক না, আই লিগের এ বারের প্রথম ডার্বি। চ্যাম্পিয়নশিপে ফয়সালাও হবে না। হোক না দু’দলে হাতে গোনা দু’তিনজন বঙ্গ সন্তান খেলবেন। তাতে কি? পাড়ায়  মোড়ে বা চায়ের দোকানে উত্তেজনার লাভাস্রোত বইছে। টিকিটের চাহিদা তুঙ্গে। কিবুর হাতে ধরিয়ে দেওয়া হয়েছে প্ল্যাস্টিকের চিংড়ি, আলেসান্দ্রোর জন্য কাডবোর্ডের ইলিশ-ও হাজির। এই ম্যাচের আগে একটা সময় পিকে বন্দ্যোপাধ্যায় বনাম অমল দত্ত, সুভাষ ভৌমিক বনাম সুব্রত ভট্টাচার্য একে অন্যের বিরুদ্ধে এমন শব্দ-বোমা ছুড়তেন, যা নিয়ে উত্তাপ বাড়ত ম্যাচের। ইস্টবেঙ্গল বা মোহনবাগান কোচ এক মঞ্চে বসে আছেন তা-ও ছিল বিরল ঘটনা। একে অন্যের তাঁবুতে আসার নিয়ম চালুর পরে ট্রেভর মগ্যান বা করিম বেঞ্চারিফারাও যেতেন তেতো মুখ নিয়ে।

কিন্তু তা বলে খেলার ছত্রিশ ঘণ্টা আগে ভরা সাংবাদিক সম্মেলনে দুই কোচের প্রেমির-প্রেমিকার মতো কথোপকথন! ভাবাই যায় না। আসলে দুই ক্লাবের পরিস্থিতি এবং পরিবেশ এখন এমন যে, দুই স্পেনীয় কোচই এই ধুন্ধুমার ম্যাচের আগে প্রচণ্ড চাপে। ‘বুকে বারুদ’ নিয়ে একে অন্যের বিরুদ্ধে মগজাস্ত্র প্রয়োগের আগে যে, দু’জনের চেয়ারের নীচেও যে রয়েছে ‘বারুদ’।