রবিবার, সেপ্টেম্বর 20, 2020
Home ফুটবল চার্চিল ম্যাচের আগে ড্যানিয়েলের চোটে অস্বস্তি মোহনবাগানের

চার্চিল ম্যাচের আগে ড্যানিয়েলের চোটে অস্বস্তি মোহনবাগানের

নেরোকা এফসির বিরুদ্ধে দুরন্ত জয়ের চব্বিশ ঘণ্টার মধ্যেই চার্চিল ব্রাদার্স ম্যাচের প্রস্তুতি শুরু হয়ে গেল মোহনবাগান শিবিরে। কোচ কিবু ভিকুনা ব্যস্ত উইলিস প্লাজ়াকে আটকানোর রণনীতি তৈরিতে।

আই লিগের প্রথম পর্বে কল্যাণীতে মোহনবাগানকে ৪-২ চূর্ণ করেছিল চার্চিল। সেই ম্যাচে জোড়া গোল করেছিলেন প্লাজ়া। বাকি দু’টো গোলের ক্ষেত্রেও প্রধান ভূমিকা নিয়েছিলেন ত্রিনিদাদ ও টোব্যাগো স্ট্রাইকার। অথচ প্লাজ়াকে আটকানোর জন্য ম্যাচের তিন-চার দিন আগে থেকেই ড্যানিয়েল সাইরাস, ফ্রান গঞ্জালেস ও ফ্রান মোরান্তেকে বিশেষ অনুশীলন করিয়েছিলেন স্পেনীয় কোচ। তবুও চার্চিল স্ট্রাইকারকে থামানো যায়নি।

শনিবার বিকেলে দেখা গেল, মাঠের বাইরে ফিজিক্যাল ট্রেনারের কাছে পেশির শক্তি বাড়ানোর অনুশীলন করছেন ড্যানিয়েল। কিন্তু কিছু ক্ষণ পরেই ঊরুতে আইসপ্যাক বেঁধে বসে পড়লেন। গোয়ায় চার্চিলের বিরুদ্ধে মোহনবাগানের ম্যাচ ২২ ফেব্রুয়ারি। তার আগে কি সুস্থ হয়ে উঠবেন ড্যানিয়েল?

অনুশীলনের পরে চিন্তিত কিবু বললেন, ‘‘ড্যানিয়েল ট্রেনিং শুরু করে দিয়েছে। দেখা যাক কী হয়।’’ ড্যানিয়েল অবশ্য আশাবাদী চার্চিলের বিরুদ্ধে খেলা নিয়ে। বলছিলেন, ‘‘যে কোনও মূল্যে চার্চিলের বিরুদ্ধে আমি খেলতে চাই। এখনও সাত দিন সময় রয়েছে। আশা করছি, তার মধ্যেই ফিট হয়ে যাব।’’ চার্চিলের বিরুদ্ধে ম্যাচটা ড্যানিয়েলের কাছেও নিজেকে প্রমাণ করার। প্লাজ়ার সঙ্গে দ্বৈরথে কখনও জিততে পারেননি তিনি। প্রথম পর্বের ম্যাচের আগে চার্চিল স্ট্রাইকার সেই প্রসঙ্গ তুলে খোঁচাও দিয়েছিলেন। বলেছিলেন, ‘‘ড্যানিয়েল আর আমি দু’জনেই ত্রিনিদাদ ও টোব্যাগোর। কিন্তু এক ক্লাবের হয়ে কখনও খেলিনি। বরাবরই আমরা প্রতিপক্ষ। তবে এখনও পর্যন্ত ও জিততে পারেনি। এ বারও পারবে না।’’ প্লাজ়ার ভবিষ্যদ্বাণীই মিলে গিয়েছিল। সেই যন্ত্রণা এখনও কাঁটার মতো বিঁধে রয়েছে ড্যানিয়েলের মনে। এই কারণেই মরিয়া চার্চিলের বিরুদ্ধে খেলার জন্য।