শুক্রবার, নভেম্বর 27, 2020
Home আটলেটিক্স প্রায় চার লক্ষ টাকায় কেনা নিজের অ্যাথলেটিক্স স্কুলের জমির লেভেলিং হয়নি স্থানীয়...

প্রায় চার লক্ষ টাকায় কেনা নিজের অ্যাথলেটিক্স স্কুলের জমির লেভেলিং হয়নি স্থানীয় কন্ট্রাক্টরদের ভুলে, আক্ষেপ সোমা বিশ্বাসের

সোমা বিশ্বাস। বাংলার প্রাক্তন আন্তর্জাতিক অ্যাথলিট। একসময় হেপ্টাথেলনে তিনি ছিলেন বিশ্বের প্রথম ৩০জনের মধ্যে। বুসান এশিয়ান গেমসে রূপোজয়ী সেই সোমা বিশ্বাস তার গ্রাম উত্তর ২৪ পরগণার দেবগ্রামে তৈরি করেছেন একটি অ্যাথলেটিক্স স্কুল। কলকাতা থেকে প্রায ৮৫ কিলোমিটার দূর তার গ্রাম। নিজে, তার অ্যাথলেটিক্স কোচ স্বামী সমীর বেরা এবং সোমার বাবা— এই তিনজন নিজেদের পকেট থেকে টাকা দিয়ে কিনেছেন একটি জমিও। সেখানে এখন প্রায় জনা ৪০ খুদে অ্যাথলিট প্রত্যেকদিন অনুশীলন করছে।

পেশাদার দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে স্থানীয় কোচও নিয়োগ করেছেন সোমা এবং সমীর। নিজেদের স্কুলদর্শন হয় প্রায় প্রত্যেক সপ্তাহে। কিন্তু অ্যাথলেটিক্স করার যে জমি তারা কিনেছিলেন, স্থানীয় কন্ট্রাক্টরদের ব্যর্থতায় সেই জমির লেভেলিংই হয়নি। সমীর বেরার আক্ষেপ, ‘‘প্রায় লাখ চারেক টাকা খরচ হয়ে গিয়েছে জমিটা কিনতে। এখন স্থানীয় কন্ট্রাক্টরদের ভুলে তার লেভেলিংটাই হয়নি। এখন আবার খরচ করে তার মেরামত করতে হবে।’’ নিজের স্কুলের নাম দিয়েছেন ‘সোমা’স স্কুল অফ স্পোর্টস’। এই আন্তর্জাতিক অ্যাথলিটও নিজের স্কুল সস্পর্কে সাম্প্রতিককালে বলেছিলেন, ‘‘আর্থিক পৃষ্ঠপোষকতা না পেলে কতদিন নিজেরা লড়াই চালাতে পারব? টাকা পেলে তো আমার অনেক কিছুই পরিকল্পনা আছে।’’ ৪১ বছরের সোমা ইতিমধ্যে কেন্দ্রীয় ক্রীড়ামন্ত্রক, রাজ্য সরকার এমনকী তার নিজের অফিস রেলওয়েজ কর্তাদেরও তার এই স্কুলের উন্নয়ন এবং তার জন্য প্রয়োজনীয় অর্থের প্রস্তাব পাঠিয়ে ছিলেন। কিন্তু এখনও পর্যন্ত কোনও সাড়া আসেনি!

বর্তমান রাজ্য সরকারের উদ্যোগে হওয়া গ্রামাঞ্চল থেকে প্রতিভাবান খেলোয়াড় তুলে আনার প্রকল্প, পাইকার সঙ্গে যুক্ত ছিলেন সোমা। কিন্তু সেই প্রকল্পের কাজও সঠিকভাবে হচ্ছে না বলে ছেড়ে দিয়ে নিজে অ্যাথলেটিক্স স্কুল তৈরি করার উদ্যোগ নিয়েছেন গ্রামে।

আগামী রবিবার সোমা বিশ্বাসের সেই স্কুলের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত হচ্ছে ১০ কিলোমিটার মিনি-ম্যারাথন। সেই দৌড় দেখতে সোমার তরফে আমন্ত্রণও জানানো হয়েছে কিছু বিশিষ্ট ব্যক্তিদের। যদি তারা সোমা বিশ্বাসের এই উদ্যোগ নিজেরা দেখার পর ওর পাশে দাঁড়ানোর জন্য এগিয়ে আসেন!