শুক্রবার, নভেম্বর 27, 2020
Home ফুটবল রেঞ্জার্সে গিয়ে বালা দেবীর স্বপ্ন, ভবিষ্যতে ভারতীয় মেয়ে ফুটবলাররাও ইউরোপে যাবে খেলতে

রেঞ্জার্সে গিয়ে বালা দেবীর স্বপ্ন, ভবিষ্যতে ভারতীয় মেয়ে ফুটবলাররাও ইউরোপে যাবে খেলতে

গত নভেম্বরে ট্রায়াল দিয়ে এসেছিলেন রেঞ্জার্স এফ সি-তে। ভাবেননি তাঁর স্বপ্ন সত্যি হবে। উনত্রিশ বছর বয়সী ভারতের সোনার মেয়ে ইউরোপে খেলার সুযোগ পাওয়ায় ভারত অধিয়ানক সুনীল ছেত্রী তাঁকে অভিনন্দন জানিয়েছেন।

ইউরোপের নামী ক্লাব রেঞ্জার্স এফসি-তে খেলার সুযোগ পাওয়াকে ‘স্বপ্ন ছোঁয়ার মতো’ ঘটনা বলে মনে করছেন বালা দেবী। বৃহস্পতিবার মেয়েদের সর্বোচ্চ গোলদাতা বলে দিলেন, ‘‘স্কটিশ লিগের নামী ক্লাবে খেলার অনভূতিটা কথায় বলে বোঝাতে পারব না। ইউরোপে খেলাটা আমার কাছে স্বপ্নের মতো ছিল। সেটা শেষ পর্যন্ত ছুঁতে পেরেছি। আমার স্বপ্ন সফল হয়েছি।’’ ভাইচুং ভুটিয়া, সুনীল ছেত্রী, গুরপ্রীত সিংহরা ইউরোপিয়ান ক্লাবে খেলে এসেছেন। কিন্তু বালা দেবী-ই প্রথম মেয়ে ফুটবলার যিনি ইউরোপের নামী ক্লাবে আঠারো মাসের চুক্তিতে খেলতে যাচ্ছেন।

গত নভেম্বরে ট্রায়াল দিয়ে এসেছিলেন  রেঞ্জার্স এফ সি-তে। ভাবেননি তাঁর স্বপ্ন সত্যি হবে। ঘটিয়ে ফেলবেন ঐতিহাসিক ঘটনা। ‘‘আপনারা সবাই জানেন রেঞ্জার্স এফসি ক্লাবের ইতিহাস এবং ঐতিহ্যের কথা। আমি সেই ক্লাবের জার্সি পরব এটা গর্বের।   স্ট্রাইকার হিসাবে নিজেকে আরও উন্নতি করার চেষ্টা করব।’’ গত বছর মেয়েদের ফুটবলে দেশার সেরা খেলোয়াড় ছিলেন বালা দেবী। মেয়েদের লিগ ও জাতীয় ফুটবলে সর্বোচ্চ গোলদাতা হয়েছিলেন। শুধু তাই নয়, স্কটিশ লিগের ক্লাবে এক সপ্তাহ ট্রায়াল দিয়ে আসার পর  দক্ষিণ এশীয় গেমসে চ্যাম্পিয়ন করেছিলেন দেশকে। হয়েছিলেন সর্বোচ্চ গোলদাতা। ফেডারেশনের ওয়েব সাইটে দেওয়া সাক্ষাতকারে বালা দেবীর মন্তব্য, ‘‘মেয়েদের ফুটবলে আমরা এগোচ্ছি। আমি আশা করব অন্য মেয়েরাও আমার মতো আগামীদিনে ইউরোপে খেলবে। দেশের হয়ে খেলে আরও সফল হবে।’’

উনত্রিশ বছর বয়সী ভারতের সোনার মেয়ে ইউরোপে খেলার সুযোগ পাওয়ায় ভারত অধিয়ানক সুনীল ছেত্রী তাঁকে অভিনন্দন জানিয়েছেন। ‘‘উন্নতি এমন একটা জিনিস যা সবসময় করা যায়। আমি এ জন্য ফেডারেশনের কাছে কৃতজ্ঞ। তারা জাতীয় দলকে সবরকম সহযোগিতা করছে। সেই সুযোগটা আমি নিয়েছি। অন্যদেরও নিতে হবে।’’ বলে দিয়েছেন মণিপুরের মেয়ে। এ বছরই ভারতে হতে চলেছে অনূর্ধ্ব ১৭ বিশ্বকাপ। তার আগে বালা দেবীর এই ইউরোপের ক্লাবে যাওয়া একটা নতুন মাত্রা যোগ করেছে এদেশের ফুটবলে।উনত্রিশ বছর বয়সী ভারতের সোনার মেয়ে ইউরোপে খেলার সুযোগ পাওয়ায় ভারত অধিয়ানক সুনীল ছেত্রী তাঁকে অভিনন্দন জানিয়েছেন। ‘‘উন্নতি এমন একটা জিনিস যা সবসময় করা যায়। আমি এ জন্য ফেডারেশনের কাছে কৃতজ্ঞ। তারা জাতীয় দলকে সবরকম সহযোগিতা করছে। সেই সুযোগটা আমি নিয়েছি। অন্যদেরও নিতে হবে।’’ বলে দিয়েছেন মণিপুরের মেয়ে। এ বছরই ভারতে হতে চলেছে অনূর্ধ্ব ১৭ বিশ্বকাপ। তার আগে বালা দেবীর এই ইউরোপের ক্লাবে যাওয়া একটা নতুন মাত্রা যোগ করেছে এদেশের ফুটবলে।