বৃহস্পতিবার, নভেম্বর 26, 2020
Home ফুটবল ইস্টবেঙ্গলের থেকে নিজেদের লোগো সরিয়ে নিল বিনিয়োগকারী সংস্থা কোয়েস

ইস্টবেঙ্গলের থেকে নিজেদের লোগো সরিয়ে নিল বিনিয়োগকারী সংস্থা কোয়েস

দ্য ব্রিজ ডেস্কঃ গতকালই ইস্টবেঙ্গলের বিনিয়োগকারী সংস্থা ও এস এর তরফ থেকে জানানো হয়, তারা আর ইস্টবেঙ্গলের সোশ্যাল মিডিয়াতে পোস্ট করবে না। কথাটা যে ভুল না, তা তারা আজ বুঝিয়ে দিল। গত দুই মরসুম ধরে তারা যে কোয়েস ইস্টবেঙ্গলের লোগো ব্যবহার করছিল, তা সরিয়ে আজ বিকেলে তারা লাল হলুদের সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি পুরাতন ইস্টবেঙ্গলের লোগো লাগিয়ে দেয়। শুধু তাই নয়, কোয়েস যে লোগোটি লাগায়, সেটিতে ইংরেজিতে লেখা কলকাতা বানানটিও দেখা যাবে সম্পূর্ণ ভুল। এই নিয়ে কোয়েসকে প্রচুর কটাক্ষও করেন ইস্টবেঙ্গল সভ্য সমর্থকরা। পরে যদিও একটি ঠিক বানান লেখা লোগো লাগায় তারা।

কোয়েসের এই সিদ্ধান্ত যদিও অবাক করার মতো নয়। এরমধ্যে শেষ কয়েকটি আই লিগ ম্যাচ হেরে গিয়ে, ইস্টবেঙ্গল ইতিমধ্যেই চ্যাম্পিয়নশিপের লড়াই থেকে ছিটকে গিয়েছে। এই হতাশাজনক পারফরম্যান্সের পরে সমর্থকরাও কোয়েসের ওপর প্রচণ্ড ক্ষুব্ধ। তাদের সমস্ত রাগ গিয়ে পড়ছিল দলের ফেসবুক পোস্টে। সেখানে ম্যাচের হার সংক্রান্ত স্কোর আপডেট থেকে শুরু করে, জুনিয়র ফুটবল টিমের খেলা বা অন্যান্য যেকোনো ব্যাপারে হওয়া পোস্টে বিনিয়োগকারী সংস্থাকে অকথ্য ভাষায় গালাগালি দেওয়া বা আরো খারাপ কথা বলতে শুরু করেন কিছু সমর্থক। তার পরিপ্রেক্ষিতেই কোয়েসের এই সিদ্ধান্ত। রবিবার সকালে একটি প্রেস রিলিজ করে তারা জানায়,”নিজেদের মধ্যে আর কোনও রকম ঝামেলা বা ভুল বোঝাবুঝি রুখতে কোয়েস ইস্টবেঙ্গল এফসি এই মুহূর্ত থেকে সমস্ত সোশ্যাল মিডিয়া পোস্ট বন্ধ করল।”

কোয়েস ইতিমধ্যেই জানিয়ে দিয়েছে যে তারা আসন্ন ৩১শে মে’র পরে আর ইস্টবেঙ্গলের সঙ্গে থাকছে না। তাহলে তারা তাদের হাতে রাখা সে আর কি করবেন? এই বিষয়ে গোলকে কোয়েস সিইও সুব্রত নাগ বলেন,”আমরা আগেই বলেছি, আসন্ন ৩১শে মে ইস্টবেঙ্গল ক্লাবের সঙ্গে আমাদের সব রকম চুক্তি শেষ হচ্ছে। এরপরে দলের আর্থিক ব্যাপারে আমাদের আর কোন দায় থাকবে না, যদিও এর মাঝে আমরা কয়েকজন বিনিয়োগকারী ব্যাংকারদের সঙ্গে কথা বলেছি, যাতে আমরা ওই শেয়ারগুলো বিক্রি করতে পারি। আশা করি আমরা এমন কাউকে পাব যারা এই শেয়ার কিনে নেবেন। আর যদি তা না হয়, তবে ৩১শে মে’র পরে দলের আর্থিক বিষয় আমাদের আর কোন দায়ভার থাকবে না।”