শুক্রবার, নভেম্বর 27, 2020
Home আটলেটিক্স টোকিও অলিম্পকে পদক জয়ের স্বপ্ন দেখছেন নীরজ চোপড়া

টোকিও অলিম্পকে পদক জয়ের স্বপ্ন দেখছেন নীরজ চোপড়া

দ্য ব্রিজ ডেস্কঃ চোট কাটিয়ে ফিরে ভারতের নীরজ চোপড়া আন্তর্জাতিক জ্যাভলিন থ্রো স্তরে দুর্দান্ত প্রত্যাবর্তন ঘটিয়েছেন। তিনি দক্ষিণ আফ্রিকার পোচেস্ট্রমে এসিএনডব্লিউ লিগ মিটে নিজের ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ থ্রো করে (৮৭.৮৬ মিটার) টোকিও অলিম্পিকে যোগ্যতা অর্জন করেছেন। বিশ্ব অ্যাথলেটিক্স সংস্থা জানিয়েছিল একজন প্রতিযোগীকে উত্তীর্ণ হওয়ার জন্য অন্তত ৮৫ মিটার দূরত্বে জ্যাভলিন ছুঁড়তে হবে।

২০১৮ সালের পরে এই প্রথম চোপড়া কোনও আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় নামেন, কারণ ২০১৯ মরসুমে তিনি কোন প্রতিযোগিতায় অংশই নিতে পারেনি। কারণ যে হাত দিয়ে তিনি জ্যাভলিন ছোঁড়েন সেই হাতের কনুইয়ে গতবছর ২রা মে তার একটি অস্ত্রোপচার হয়।

Neeraj 1. (Image: The Quint)

এই জয়ের পরে নীরজকে বেশ তৃপ্ত দেখাচ্ছিলো।”আমি আমার এই ফলাফলে খুবই খুশি। এই প্রতিযোগিতায় নামার আগে খামোখা আমি নিজে উপরে কোনরকম অতিরিক্ত চাপ দিইনি। আমি শুধু দেখে নিতে চেয়েছিলাম যে আমার বর্তমান অবস্থাটা কেমন, কারণ দীর্ঘদিন পরে আমি কোন প্রতিযোগিতায় নেমেছিলাম। আমি যখন গা ঘামানোর সময় থ্রো করি সে সময়ও আমি বেশি ভালো জ্যাভলিন ছুঁড়ে ছিলাম। আমার প্রথম তিনটি থ্রো ৮১ থেকে ৮২ মিটার হয়েছিল। যদিও তা সত্বেও আমার মনে হয়েছিল আমি আরো ভালো করতে পারি,” জেতার পরে বলেন নীরজ।

“যখন আমি চোটের সময় রিহ্যাবে ছিলাম তখন থেকেই আমার টার্গেট ছিল এই প্রতিযোগিতা আমায় যেমন করে হোক জিততে হবে এবং টোকিও অলিম্পিকে যোগ্যতা অর্জন করতে হবে। আমি খুশি তা করতে পারায়। এবার আমি পোচেস্ট্রমেই আমার কোচ ও ফিজিওর তত্ত্বাবধানে রোজকার অনুশীলন শুরু করব কারণ সামনেই অলিম্পিক। নিজেকে আরো ভালোভাবে তৈরি করতে আসন্ন মাস গুলিতে আমি আরো প্রতিযোগিতায় নামব।”

“এটা সত্যি গত এক বছর আমার কাছে খুবই কঠিন সময় ছিল, কিন্তু আমি জানতাম আমি খুব ভালো প্রত্যাবর্তন করব, আর আমি নিজেকে সেভাবেই তৈরি করছিলাম। আমি ধন্য যে সবাই আমায় খুব সমর্থন করেছেন এবং আমি মনে করি ভবিষ্যতে আরো ভালো ফল করব।”