শনিবার, সেপ্টেম্বর 19, 2020
Home ফুটবল আই লিগঃ দুরন্ত কামব্যাক, পিছিয়ে পরেও বড় জয় ইস্টবেঙ্গলের

আই লিগঃ দুরন্ত কামব্যাক, পিছিয়ে পরেও বড় জয় ইস্টবেঙ্গলের

দ্য ব্রিজ ডেস্কঃ গত ম্যাচে ইন্ডিয়ান অ্যারোজকে হারিয়ে জয়ের সরণীতে ফিরেছিল ইস্টবেঙ্গল। রবিবার ইম্ফলে তারা আবার জিতলো ট্রাউ এফসির বিরুদ্ধে।। আর এই জয়ের অবনমনের আতঙ্ক থেকে পুরোপুরি বেরিয়ে এল ইস্টবেঙ্গল। উঠে এল চতুর্থ স্থানে। রবিবার প্রথমে পিছিয়ে পড়েও লালহলুদ যে দুরন্ত কামব্যাক করলো, তা বহুদিন মনে রাখবেন সমর্থকরা। লালহলুদ জিতলো ৪-২ গোলে। ইস্টবেঙ্গলের হয়ে গোলগুলো করলেন হাইমে কোলাডো, কাশিম আইডারা, ব্রেন্ডন এবং মার্কোস। ট্রাউয়ের হয়ে গোল এমেকা এবং উচে। বিরতির পর মাঠে নেমে ম্যাচের রঙ পালটে দিলেন নবাগত স্প্যানিশ ভিক্টর। এই জয়ের ফলে ১৩ ম্যাচে ১৮ পয়েন্টে পৌছালো ইস্টবেঙ্গল।

দলের সঙ্গে মাত্র দু’দিন আগে যোগ দিয়েছিলেন স্প্যানিশ মিডফিল্ডার ভিক্টর। স্বাভাবিকভাবেই তাঁকে প্রথম একাদশে রাখেননি মারিও রিভেরা। গত ম্যাচে জয়ের পর এদিন ইস্টবেঙ্গলকে নিয়ে কিছুটা হলেও উৎসাহ তৈরি হয়েছিল সমর্থকদের মনে। কিন্তু রক্ষণ এবং গোলরক্ষকের ভুলে ম্যাচের প্রথমেই পিছিয়ে পরে ইস্টবেঙ্গল। দীনেশ সিংয়ের নির্বিশ সেন্টারে ফাঁকায় হেড করে যান এমেকা। মেহতাব সিং এবং গোলরক্ষক রালতে দর্শকের ভূমিকায় ছিলেন। গোটা প্রথমার্ধ জুড়েই ইস্টবেঙ্গল জঘন্য ফুটবল খেলে। বিরতির পরে মাঠে নামেন ভিক্টর। ঠান্ডা মাথায় খেলাটা পালটে দেন তিনি। ৫২ মিনিটে সমতায় ফেরে ইস্টবেঙ্গল। হাইমের শট, দীপক দেবারাণীর পায়ে লেগে জালে জড়িয়ে যায়। ৬৭ মিনিটে এগিয়ে যায় ইস্টবেঙ্গল। ভিক্টরে ফ্রিকিকে ড্রপ হেড করেন মার্কোস। সেই বলে আবার হেড করে জালে ঠেলেন কাশিম। তিন মিনিট পর আবার গোল। মার্কোসের পাসে গোল করেন ব্রেন্ডন। ৭৬ মিনিটে পেনাল্টি পায় ইস্টবেঙ্গল। সেই পেনাল্টি থেকে ৪-১ করেন মার্কোস। ৮৪ মিনিটে পেনাল্টি পায় নেরোকা। গোল করেন ওগোচি উচে। ৮৭ মিনিটে ওলালে সহজ সুযোগ নষ্ট না করলে চাপে পড়ে যেত ইস্টবেঙ্গল।