রবিবার, নভেম্বর 29, 2020
Home টোকিও অলিম্পিক ২০২০ 'আজাদ কাশ্মীর' এবার পাকিস্তানী ঘোড়সওয়ারের টোকিও অলিম্পিকের স্বপ্ন শেষ করতে পারে

‘আজাদ কাশ্মীর’ এবার পাকিস্তানী ঘোড়সওয়ারের টোকিও অলিম্পিকের স্বপ্ন শেষ করতে পারে

দ্য ব্রিজ ডেস্কঃ সারা পৃথিবীর শত শত অ্যাথলিটরা এখন টোকিও ২০২০ অলিম্পিকে যোগ্যতা অর্জনের জন্য বিভিন্ন যোগ্যতা অর্জনকারী টুর্ণামেন্টে খেলে বেড়াচ্ছেন। এর মধ্যে অনেকগুলি টুর্নামেন্ট এখনও খেলা বাকি। পাকিস্তানের ঘোড়সওয়ার উসমান খান হলেন প্রথম ব্যক্তি যিনি পাকিস্তানের তরফ থেকে প্রথম অলিম্পিকে যোগ্যতা অর্জন করেছেন। যদিও এই নিয়েও তৈরি হয়েছে ভারত-পাকিস্তান দুই দেশের রাজনৈতিক সংঘাত। ভারতের তরফ থেকে উসমানের অলিম্পিকে যোগ্যতা অর্জন নিয়ে প্রশ্ন তোলা হয়েছে, কারণ তিনি যে ঘোড়া চড়ে অলিম্পিকের জন্য যোগ্যতা অর্জন করেছিলেন, সেই ঘোড়ার নাম ছিল ‘আজাদ কাশ্মীর’ (মুক্ত কাশ্মীর)।

হিন্দুস্থান টাইমসের একটি রিপোর্ট অনুযায়ী ২০১৯ সালে উসমান ১২ বছর বয়সী একটি ঘোড়া কিনেছিলেন অস্ট্রেলিয়া থেকে যার নাম ছিল “হিয়ার টু স্টে”। যদিও তার নাম পরিবর্তন করে রাখা হয় আজাদ কাশ্মীর।

এরপরই ভারতীয় অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশন এরপরই আন্তর্জাতিক অলিম্পিক ফেডারেশনের দ্বারস্থ হয়। তারা জানতে চায় উসমানের এই কাজ অলিম্পিক ক্যারেক্টার নিয়ম ৫০ এর বিরোধী কিনা। এই নিয়মে বলা আছে কোনরকম অপমানজনক কাজকর্ম অথবা রাজনৈতিক কাজকর্ম কোনো অলিম্পিকের আসরে করলে তা শাস্তিযোগ্য অপরাধ।

এই বিষয়ে ভারতীয় অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি নরিন্দর বাত্রা হিন্দুস্তান টাইমসকে বলেন,”অলিম্পিকের মতো আসরে কোন রকম রাজনীতি করা উচিত নয়। আর যারা এ কাজ করছে তাদের এরকম একটা আসরে যোগদান করার কোন অধিকার নেই।”

অন্যদিকে এ বিষয়ে পাকিস্তানের আইটি প্রধান মুহামেদ ইরফান জাফর বলেন,” যদি এটা নিয়ে কোনও বিতর্ক হয় তবে আমরা প্রথমে দেখব উসমান তার ঘোড়ার নাম পাল্টান কিনা। যদিও আমরা সেই ঘোড়ার নামের পরিবর্তে তার এফইআই চিহ্ন ব্যবহার করতে পারি।”