শুক্রবার, নভেম্বর 27, 2020
Home আটলেটিক্স এখনই অবসর নেওয়ার কথা ভাবছেন না আনন্দ

এখনই অবসর নেওয়ার কথা ভাবছেন না আনন্দ

কলকাতায় এসেছেন বিশ্বনাথন আনন্দ। নিজের একটি বইপ্রকাশ উপলক্ষ্যে। একইসঙ্গে টলি ক্লাবে টাটা লিটারেরি মিটেও অংশ নেবেন। সাংবাদিক বৈঠকে তার উদ্দেশ্য প্রথম প্রশ্ন ছিল, কতদিন খেলবেন? কবে অবসর? বিশ্বনাথন আনন্দের সহাস্য জবাব, ‘‘যতদিন মন চাইবে, ততদিন খেলে যাব। আমি এখনও দাবা খেলে আনন্দ পাই।’’ তবে হ্যাঁ, জানাতে ভুললেন না, এখন তাকে খেলতে হলে টুর্নামেন্ট বেছে খেলতে হবে। কারণ তার বয়স ৫০ পেরিয়ে গিয়েছে। কিন্তু অবসর নেওয়ার কথা এখনও তার মাথায় আসেনি।

চলতি বছরে তাঁর সামনে বেশি টুর্নামেন্ট নেই। ফলে মানসিকভাবে হালকা থাকতে চান। বললেন, ‘‘২০১৯ সালে তুলনায় এই বছরে চাপ কম। প্রতি বছরই আমি অভিযোগ করি, বিশ্রাম পাচ্ছি না বলে। এ বছর কিন্তু বিশ্রামের বছর। টুর্নামেন্টও কম। চেস অলিম্পিয়াড রয়েছে। তাও অনেক দেরি আছে। ছেলেকে নিয়ে সময় কাটাব।’’ তাঁর সংযোজন, ‘২০২১ সাল নিয়ে ভাবছি। অনেক টুর্নামেন্ট হওয়ার কথা। সেই প্ল্যান করে যাচ্ছি।’’ ভারতীয় দাবা ফেডারেশনের ডামাডোল নিয়ে কোনও মন্তব্য না করলেও দেশের দাবার ভবিষ্যৎ যে উজ্জ্বল, তা গোপন করেননি। তাঁর কথায়, ‘‘দেশের বেশ কয়েকজন দাবাড়ু ভালো খেলছেন। বিশ্বের প্রথম সারিতে আসার সম্ভাবনাও প্রবল। তাদের কেউ আমার সাহায্য চাইলে, আমি তা করতে রাজি আছি। বেশ কয়েকজনের সঙ্গে আমার কথাও হচ্ছে।’’

গ্যারি কাসপারভের সঙ্গে আনন্দের একাধিক দ্বৈরথ আজ দাবা বিশ্বে রূপকথার মতো হয়ে গিয়েছে। সেই প্রসঙ্গও উঠল সাংবাদিকদের প্রশ্নে। আনন্দ আবার হেসে বললেন, ‘‘এখন আর দ্বৈরথ নেই। বয়স হয়চ্ছে তো! এবারই তো আমায় জন্মদিনে কাসপারভ ভিডিও বার্তা পাঠিয়েছে।’’ এরপরও আনন্দ মনে করছেন কাসপারভ তার বন্ধুদের তালিকায় পড়বেন না! চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীদের তালিকা হলে সেখানে হয়তো কাসপারভ হয়তো আনন্দের তালিকায় এক নম্বরে থাকবেন! সর্বকালের সেরা কি কাসপারভ? এই প্রশ্নেও আনন্দ সপ্রতিভ। বললেন, ‘‘মনে হয় না। কার্লসেনই সকলের চেয়ে এগিয়ে। একটু হলেও।’’