রবিবার, নভেম্বর 29, 2020
Home ক্রিকেট দলে সেফালি ভার্মা , বাংলার রিচা: একনজরে ভারতের বিশ্বকাপের দল

দলে সেফালি ভার্মা , বাংলার রিচা: একনজরে ভারতের বিশ্বকাপের দল

আসন্ন টি-২০ বিশ্বকাপে ভারতীয় দলে অন্তর্ভুক্তি হল বাংলার ১৬ বছরের মেয়ে রিচা ঘোষ এবং ইতিমিধ্যেই আন্তর্জাতিক আসরে সোরগোল ফেলে দেওয়া সেফালি ভার্মার। আগের বারের মতই বার দলকে নেতৃত্ব দেবেন হরমনপ্রীত কৌর। আন্তর্জাতিক টী-২০ ক্রিকেট থেকে অবসর নিয়ে নেওয়ার জন্য ভারতীয় জার্সি গায়ে দেখা যাবে না মিতালি রাজ এবং ঝুলন গোস্বামীকে।

একদিকে যেমন স্মৃতি মন্ধানা, দিপ্তী শর্মা, ভেদা কৃষ্ণমূর্তি, রাধা যাদবরা রয়েছেন তেমনি মিডল অর্ডারকে শক্তিশালী করার জন্য আছেন জেমিমাহ রড্রিগেজ। স্পিন বোলিং এর দায়িত্ব ভাগ করে নেবেন রাধা যাদব, রাজেস্বরী গায়াকোয়াড়, পুনম যাদব। শিখা পান্ডে , পূজা বস্ত্রকার একদিকে যেমন পেস বোলিং এর দায়িত্বে থাকবেন ব্যাটিং এর লেজ ছোটো করার ভারও তাদের থাকবে। এক্স ফ্যাক্টর হয়ে উঠতে পারেন ওপেনিং এ সেফালি ভার্মা যে নিজের জাত চিনিয়েছেন ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে এবং মিডল অর্ডারে রিচা ঘোষ। সম্প্রতি সিনিয়র চ্যালেঞ্জারে রিচার করা ছোটও কিন্তু ঝোড়ো ব্যাটিং নজর কেড়েছে অনেকের। ভারতীয় ব্যাটিং প্রধানত টপ অর্ডার নির্ভর এবং বিশ্বকাপে ভালো ফল করার জন্য ভারতীয় দলে তাকিয়ে থাকবে স্মৃতি মন্ধানা, জেমিমাহ, সেফালি এবং হরমনপ্রীতের ব্যাটিং এর দিকে।

২০০৯ সাল থেকে বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করলেও ২০১৮ সালের বিশ্বকাপেই ভারত প্রথমবারের জন্য সেমিফাইনালে পৌঁছয় এবং ইংল্যান্ডের কাছে পরাজিত হয়। পরাজয়ের থেকেও সমসাময়িক সময়ে আলোড়ন তোলে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে মিতালি রাজকে দল থেকে বাদ দেওয়ার ঘটনা এবং পরবর্তীতে দলের মধ্যের বিভাজন সকলের সামনে চলে আসে। দ্বিধাবিভক্ত হয় ক্রীড়াপ্রেমীরা। মিতালি রাজ এবং হরমনপ্রীর কৌর – কোচ রমেশ পাওয়ারের এর দ্বৈরথ ম্লান করেছিল সাফল্যকে। সেমিফাইনালের পরাজয়ের আগে গ্রুপ স্টেজের ম্যাচ গুলিতে অপরাজিত ছিল ভারত।

team
বিশ্বকাপে ভারতীয় দলঃ নেতৃত্বে হরমনপ্রীত কৌর

একনজরে দেখে নেওয়া যাক ভারতের দল এবং ২০১৮ সালের বিশ্বকাপের পর থেকে তাদের পরিসংখ্যান-

স্মৃতি মন্ধানা (সহ-অধিনায়িকা)- ১৪ ম্যাচে ৪০৫ রান স্ট্রাইকরেট ১২৪ সর্বোচ্চ ৮৬
জেমিমাহ রড়্রিগেজ- ১৫ ম্যাচে ৩০২ রান স্ট্রাইকরেট ৯২ সর্বোচ্চ ৭২
সেফালি ভার্মা- ৯ ম্যাচে ২২২ রান স্ট্রাইকরেট ১৪২ সর্বোচ্চ ৭৩
হরমনপ্রীত কৌর (অধিনায়িকা) – ১১ ম্যাচে ১৫২ রান স্ট্রাইকরেট ১০২ সর্বোচ্চ ৪৩
দীপ্তি শর্মা- ১৪ ম্যাচে ১৪৪ রান ট্রাইকরেট ৮১ সর্বোচ্চ ২২
১৯ উইকেট ইকোনমি ৫.১৪ বেস্ট-৪/১০
ভেদা কৃষ্ণমূর্তি- ১০ ম্যাচে ১৩৩ রান স্ট্রাইকরেট ১০৬ সর্বোচ্চ ৫৭*
হারলিন দেওল- ৫ ম্যাচে ২৩ রান স্ট্রাইকরেট-৬২ সর্বোচ্চ ১৪
তানিয়া ভাটিয়া- ১৫ ম্যাচে ২১ রান স্ট্রাইকরেট ১০০ সর্বোচ্চ ১১*
রিচা ঘোষ- অভিষেক হয়নি এখনো
রাজেশ্বরী গায়াকোয়াড়- খেলেননি এই পর্বে
রাধা যাদব- ১৩ ম্যাচে ২১ উইকেট ইকোনমি ৫.৬৭ বেস্ট-৩/২৩
পুনম যাদব- ১৪ ম্যাচে ১৬ উইকেট ইকোনমি ৫.৮১ বেস্ট ৩/১৩
শিখা পান্ডে- ৮ ম্যাচে ৭ উইকেট ইকোনমি ৫.১০ বেস্ট ২/১৮
অরুন্ধতি রেড্ডী- ৫ ম্যাচে ৫ উইকেট ইকোনমি ৮.৩০ বেস্ট ২/২২
পূজা বস্ত্রকার- ৮ ম্যাচে ৪ উইকেট ইকোনমি ৬.০৬ বেস্ট ১/৯